Header Border

ঢাকা, বুধবার, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)

কুমিল্লায় যুবলীগ নেতা হত্যা: গ্রেপ্তার ৩, বিদেশে পালিয়েছে পাঁচ আসামি

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বোরকা পরা দুর্বৃত্তদের গুলিতে যুবলীগ নেতাকে হত্যায় এক আওয়ামী লীগ নেতাসহ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। মামলার পাঁচ আসামি বিদেশে পালিয়ে গেছে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

শনিবার দিনে ও রাতে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ, ঢাকার রায়েরবাগ, কালশী ও মিরপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. তানভীর মাহমুদ পাশা।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় কুমিল্লা নগরীর শাকতলা এলাকার র‌্যাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানিয়েছেন, আসামিদের কাছ থেকে যুবলীগ নেতা জামাল হোসেন (৪০) হত্যাকাণ্ডের সময় ব্যবহৃত বোরকাও উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তাররা হলেন- মামলার তিন নম্বর আসামি তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের খুরশিদ মিয়ার ছেলে মো. ইসমাইল, চার নম্বর আসামি একই উপজেলার মনাইরকান্দি গ্রামের আক্তার হোসেন শিকদারের ছেলে মো.শাহীনুল ইসলাম ওরফে সোহেল শিকদার এবং সাত নম্বর আসামি দাউদকান্দির গোপচর গ্রামের মৃত বজলুর রহমানের ছেলে শাহ আলম ওরফে পা কাটা আলম।

নিহত জামালের পরিবারের সদস্যদের দাবি, এই খুনের ‘পরিকল্পনাকারী বা মাস্টারমাইন্ড’ হচ্ছেন তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম ওরফে সোহেল শিকদার। আর মামলার আসামিরা সকলেই ‘শিকদার বাহিনী’র সদস্য।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানভীর মাহমুদ বলেন, “যুবলীগ নেতা জামাল হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ৯ আসামির মধ্যে আমরা তিন জনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি।

“তবে মামলার প্রধান আসামি সুজন নেপালে, দ্বিতীয় আসামি আরিফ নেপালে, পাঁচ নম্বর আসামি বাদল দুবাইতে, ছয় নম্বর আসামি শাকিল ভারতে আর আট নম্বর আসামি অলি হাসান সৌদি আরবে পালিয়ে গেছে। আর নয় নম্বর আসামি কালা মনির আত্নগোপনে রয়েছে।”

তিনি জানান, গ্রেপ্তার হওয়া আসামি ইসমাইলের বিরুদ্ধে দুইটি হত্যা মামলাসহ মোট তিনটি মামলা, শাহীনুল ইসলাম ওরফে সোহেল শিকদারের বিরুদ্ধে তিনটি হত্যা মামলাসহ মোট নয়টি মামলা এবং শাহ আলমের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলাসহ মোট ১০টি মামলা রয়েছে।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, “বিদেশে অবস্থানরত আসামিদের দেশে ফেরাতে এবং হত্যার সাথে জড়িত অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারে আমরা কাজ করছি। আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ববিরোধের জেরে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।”

শনিবার দিনে ও রাতে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ এলাকা, ঢাকার রায়েরবাগ, কালশী ও মিরপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে আসামির কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বোরকা উদ্ধার করা হয়েছে।

গত ৩০ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে দাউদকান্দির গৌরীপুর পশ্চিম বাজার ঈদগাহ এলাকার মসজিদ গলিতে জামাল হোসেনকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। জামাল তিতাস উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন।

হত্যাকাণ্ডের দুইদিন পর ২ মে রাত সাড়ে ১১টায় জামালের স্ত্রী পপি আক্তার বাদী হয়ে দাউদকান্দি থানায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা ৮ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এরই মধ্যে ওই যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যার ঘটনার সময়ের কয়েকটি সিসিটিভি ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ভাইরাল হওয়া ফুটেজে দেখা যায়- জামাল হোসেন হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া তিন দুর্বৃত্তের সকলেই ছিলেন বোরকা পরা। দশ সেকেন্ডের মধ্যে তারা পরপর তিনটি গুলি চালিয়ে জামালের মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়।

প্রিয় পোষ্ট সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন


আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন
স্মার্ট বাংলাদেশের পথে এগিয়ে চলছে দেশ: ধর্মমন্ত্রী
চাঁদপুর সদর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন
পশুর নদে কয়লাবাহী কার্গো জাহাজডুবি, ১১ নাবিক জীবিত উদ্ধার
রমজানে দ্রব্যমূল্য ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে সরকার সচেষ্ট…দীপু মনি
হাজীগঞ্জে যুবককে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা
রংপুরের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

জেলার খবর এর আরও খবর

উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি: ডঃ মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, উপদেষ্টা সম্পাদক: অধ্যাপক মোঃ আবুল কালাম, প্রধান সম্পাদক: রোটাঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় সম্পাদক ও প্রকাশক: ইঞ্জিঃ মোঃ ইমতিয়াজ সিদ্দিকী তোহা।
কার্যালয়: গ্রীন রোড, কাঁঠাল বাগান, ঢাকা ।